খবরবিনোদন জগৎ

এবার বধূ রূপে দেখা গেল শবনম বুবলীকে!

‘আমি একজন মুসলিম, তো এটুকুই বলব আমাদের যা হয়েছে তা খুব শালীনভাবেই হয়েছে। এ বিষয়ে অনুরোধ করব সবাইকে, কেউ খারাপ কিছু ছড়াবেন না এবং আমি কয়েকটা দিন সময় চাইছি সবার কাছে। কয়েক দিনের মধ্যেই আমি বিষয়টা ক্লিয়ার করে দেবো। আর এটি আমার জন্য খুবই সেনসিটিভ একটি বিষয়।’

গেলো মঙ্গলবার দুপুরে ফেসবুকে নিজের বেবি বাম্পের ছবি শেয়ার করেছিলেন এই অভিনেত্রী। এরপরই নানা প্রশ্নের জন্ম হয় সিনেপাড়ায়। সেদিন রাতেই গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় কয়েকদিন সময় চেয়েছিলেন সব ক্লিয়ার করার জন্য। ভক্ত অনুগামীসহ সিনে দুনিয়ার সবাই অপেক্ষায় রয়েছেন সেই কয়েকটা দিনের। আর এসব আলোচনার মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আবারও সরব হলেন বুবলী।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বুবলী নিজের ফেসবুকে আরেকটি নতুন একটি পোস্ট দেন। তবে এবার ব্যাক্তিগত ছবি নয়, শেয়ার করেছেন ফ্যাশন ও বিবাহ বিষয়ক ফটোশুট। যেখানে বুবলীকে বধূ সাজে দেখা যাচ্ছে। আসলে একটি কমার্শিয়াল পোস্ট এটা। যদিও সবাই ভাবছিলো বুবলী এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় ভেঙে পড়েছেন কিন্তু আদতে বুবলী স্বাভাবিকই আছেন মনে হচ্ছে। তার সোশ্যাল হ্যান্ডেল কিন্তু সে কথাই বলছে।

আরও পড়ুন# তবে কি অপু বিশ্বাসের পথেই হাঁটতে চলেছেন বুবলী?

গেলো মঙ্গলবার বিকেলে দুইটি ছবি প্রকাশ করে হইচই ফেলে দেন বুবলী। ওই ছবিতে দেখা যায় বুবলীর বেবীবাম্প। জানা যায়, ২০২০ সালে অন্তরালে চলে যাওয়ার সময় আমেরিকায় তোলা সেই ছবি দুটো।

গত মঙ্গলবার শাকিব খান তার ছেলে জয়ের জন্মদিনে আবেগমিশ্রিত পোস্ট সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়ার পর বুবলীও নিজের পুরনো বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ করেন। যা ঝড় তুলে দিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। যা দিয়ে এক প্রকার শাকিবকে বার্তাই দিতে চেয়েছেন যেন তিনি। শাকিবের আরেক সন্তানের মা বুবলী একথাই যেনো প্রায় স্বীকার করেন অভিনেত্রী। বলেন, ‘কিছু ব্যাপার তো আছেই।’ এরপর তিনি কয়েকদিন সময় চেয়ে বলেন ‘কয়েকটা দিন সময় চাইছি। কয়েক দিনের মধ্যেই আমি বিষয়টা ক্লিয়ার করে দেব।’ বুবলীর এমন সব মন্তব্য সবাইকে অপু বিশ্বাসের ঘটনাই মনে করিয়ে দিচ্ছেন। অর্থাৎ বুবলীও অপুর পথেই হাঁটতে যাচ্ছেন বলে এখন জোর গুঞ্জন সিনেপাড়ায়।

 

Back to top button

Opps, You are using ads blocker!

প্রিয় পাঠক, আপনি অ্যাড ব্লকার ব্যবহার করছেন, যার ফলে আমরা রেভেনিউ হারাচ্ছি, দয়া করে অ্যাড ব্লকারটি বন্ধ করুন।