গুচ্ছে সাবজেক্ট চয়েজ দেবেন যেভাবে!

আগামী ৩০ জুলাই গুচ্ছভুক্ত ২০ টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিট তথা বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত বিভাগসমূহের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। অনুলিপির পক্ষ থেকে সকল পরীক্ষার্থীদের জানাই শুভ কামনা। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার কঠিন ধাপ পেরিয়ে উত্তীর্ণ হওয়ার পর সবচেয়ে বেশি যে সমস্যাটির মুখোমুখি হয় তা হলো সাবজেক্ট চয়েজ দেওয়া। সাবজেক্ট চয়েজ যেন এক মধুর সমস্যা। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে সাবজেক্ট চয়েজ দেওয়া তুলনামূলক সহজ। কিন্তু গুচ্ছভুক্ত ২০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে সাবজেক্ট চয়েজ দেওয়া ঠিক ততটাই কঠিন। আর এই মধুর সমস্যাকে সহজ করতেই অনুলিপির আজকের এই আয়োজন!

বাংলাদেশে মোট ৪৬ টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চালু আছে। এসমস্ত পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো প্রতিবছর ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে নতুন শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করে থাকে। গত ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষ থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে (স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয় ব্যতিত) একসাথে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়। এতে মোট ২০ টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় একীভূত হয়ে একটি গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়।

আরও পড়ুন# হাওয়াই মিঠাই: বাংলার ঐতিহ্যবাহী মিঠাই!

আমরা জানি প্রতিবছর লাখেরও বেশি শিক্ষার্থী বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করে। এতে খরচ হয় হাজার হাজার টাকা। আবার এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার সময় যাতায়াত, থাকা খাওয়া নিয়েও ভোগান্তির শেষ থাকে না পরীক্ষার্থীদের। এসব সমস্যার সমাধানের লক্ষ্যেই ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষ থেকে শুরু হয়েছিল গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা। তারই ধারাবাহিকতায় ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী ৩০ জুলাই (শনিবার) থেকে।

গুচ্ছভুক্ত ২০ বিশ্ববিদ্যালয়:

১. জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।

২. ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া।

৩. খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা।

৪. কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা।

৫. জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ।

৬. বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর।

৭. বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল।

৮. বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর।

৯. শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়, নেত্রকোনা।

১০. শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট।

১১. হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, দিনাজপুর।

১২. মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, টাঙ্গাইল।

১৩. নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী।

১৪. যশোর বিজ্ঞানও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর।

১৫. পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা।

১৬. বঙ্গবন্ধু শেখমুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জ।

১৭. রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি।

১৮. বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, জামালপুর।

১৯ পটুয়াখালী বিজ্ঞানও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী।

২০. রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, সিরাজগঞ্জ।

সাবজেক্ট চয়েজ দেওয়ার ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন যে বিষয়গুলো

পছন্দের বিষয়কে প্রাধান্য দিন

সাবজেক্ট চয়েজ দেওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই নিজের পছন্দ ও আগ্রহকে গুরুত্ব দিন। প্রথমে নিজেকে জানুন। নিজের পছন্দের ক্ষেত্রটি খুঁজে বের করুন। ধরুন আপনার প্রকৌশল বিষয়ক জ্ঞান ও এ বিষয়ে আগ্রহ মোটামুটি ভালো। তখন আপনার উচিত হবে এ ধরণেরই কোন একটি বিষয়কে অ্যাকাডেমিক পড়াশোনার জন্যে বেছে নেওয়া। এক্ষেত্রে আপনার অ্যাকাডেমিক পড়াশোনা সহজতর হবে। নিজের আগ্রহের বিষয়ে পড়াশোনা করার ফলে সহজে আগ্রহ নষ্ট হবে না।

পছন্দের বিষয়ের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়টিও পছন্দসই হোক!

যে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চাচ্ছেন সেটিকেও রাখুন নিজের পছন্দের তালিকায়। আমাদের দেশে অনেকেই নির্দিষ্ট কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির স্বপ্ন দেখেন। যোগ্যতা থাকলে সেসব বিশ্ববিদ্যালয়কে প্রাধান্য দিন শুরুতেই। অনেকেই আবার বাড়ি থেকে নিকটবর্তী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি হতে আগ্রহ বেশি প্রকাশ করেন। সেক্ষেত্রে দেখে নিন, আপনার জন্যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়টি তুলনামূলক কাছে!

আরও পড়ুন# যেভাবে চরম অর্থনৈতিক সংকটে শ্রীলঙ্কা!

সাবজেক্ট চয়েজ দেওয়ার ক্ষেত্রে ভবিষ্যতের কথা মাথায় রাখুন!

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির মূল উদ্দেশ্য থাকে নির্দিষ্ট একটি বিষয়ে দক্ষ হয়ে ওঠা। তবে আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে বিষয়টি তেমনভাবে চর্চিত হয় না। আমাদের দেশে গ্র‍্যাজুয়েশন শেষ করার পর চাকরি পাওয়াটাই হয়ে ওঠে মূল লক্ষ্য। চাকরির বাজারে চাকরি নামক সোনার হরিণটি খুঁজতে গিয়ে ক্ষয় হয় জুতার তলা। তাই চাকরি পেতে সহজ হবে এমন বিষয়কেও প্রাধান্য দিতে পারেন

গবেষণার কথা মাথায় রাখুন

বিশ্ববিদ্যালয় মানেই গবেষণার অফুরন্ত সুযোগ। কাজেই নিজের আগ্রহের বিষয়ে গবেষণা করতে চাইলে সাবজেক্ট চয়েজ দেওয়ার সময় সতর্ক হন। গবেষণার হার বেশি এমন সব বিভাগকে এগিয়ে রাখুন পছন্দের তালিকায়!

কান দেবেন না লোকের কথায়

সাবজেক্ট চয়েজের ক্ষেত্রে কখনোই লোকের কথায় কান দিতে নেই। অমুক বিষয় ভালো না, তমুক বিশ্ববিদ্যালয় ভালো না, এমন সব কথা এড়িয়ে চলুন। মনে রাখবেন, আপনি যে বিশ্ববিদ্যালয়েই পড়ুন না কেন, নিজ লক্ষ্যে অটল থাকলে সফল হওয়া সময়ের ব্যাপার মাত্র। কাজেই লেগে থাকুন, একদিন সফলতা আসবেই। মনে রাখবেন, নেতিবাচকতার ফাঁদে পড়ে অনেকেই ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েও পিছিয়ে যায়। যা পরবর্তীতে আফসোসের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

অনভিজ্ঞদের এড়িয়ে চলুন

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে অনভিজ্ঞ মানুষদের এড়িয়ে চলুন। বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভাগ সম্পর্কে ধারণা না রাখা কারো কাছ থেকে পরামর্শ নেবেন না। কেউ যদি কোন নেতিবাচক মন্তব্য করে বসে তাহলে বুঝবেন তিনি বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে ধারণা না রেখেই মতামত দিয়ে যাচ্ছেন। এসব এড়াতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী/শিক্ষকদের পরামর্শ নিন। দূর থেকে দেখে দেখে যারা পরামর্শ দেয় তাদের পরামর্শ বেশিরভাগ সময়ই ভুল হয়।

সাবজেক্ট চয়েজ দেওয়ার আগে পড়ে নিন সাবজেক্ট রিভিউগুলো 

কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন সাবজেক্ট কেমন, কী কী কোর্স করানো হয়, সেশন জট আছে কি নেই এমন সব তথ্য আপনি জানতে পারবেন সাবজেক্ট রিভিউ দেখে। পাশাপাশি কোন সাবজেক্টে পড়াশোনা করে কোন কোন ক্ষেত্রে কাজের সুযোগ আছে তাও জানতে পারবেন।

ইমিডিয়েট সিনিয়রদের পরামর্শ নিন

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সময় সবচেয়ে বেশি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে পারেন ইমিডিয়েট সিনিয়রেরা। তাই তাদের পরামর্শ নিতে পারেন। আপনাদের আগের বছর তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছে। কাজেই তারা বেশ ভালো করেই জানে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সময় কী কী বিষয় মাথায় রাখা উচিত। তাই তাদের পরামর্শ নিতে একদমই ভুলবেন না!

শেষ কথা: 

পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ে পছন্দের বিষয়ে পড়াশোনা করা প্রতিটি শিক্ষার্থীরই অলিখিত স্বপ্ন। এ স্বপ্ন বাস্তবায়নে চাই সঠিক পড়াশোনা, সঠিক পরিশ্রম। পাশাপাশি চাই সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা। তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া ও পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়া অনেকটাই সহজতর হবে। কেননা সঠিক সিদ্ধান্ত আপনাকে নিয়ে যেতে পারে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যের দিকে। আবার একটি ছোটোখাটো ভুল উলটে পালটে দিতে পারে আপনার দীর্ঘদিনের প্রস্তুতি ও পরিশ্রম! কাজেই সাবজেক্ট চয়েজ দিন বুঝে শুনে। গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসাবেন না কিন্তু!

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Dear Viewer, Please Turn Off Your Ad Blocker To Continue Visiting Our Site & Enjoy Our Contents.