দুই দিনে দুইজনকে বিয়ে, ধরা পড়ল প্রতারকচক্র!

 অনুলিপির পোস্ট সবার আগে পড়তে গুগল নিউজে ফলো করুন 👈

বিয়ের নামে প্রতারণা করেছিল ভুয়া কনেপক্ষ! তারা বরপক্ষকে বিভিন্ন ফাঁদে ফেলে বিয়ের নামে টাকাপয়সা হাতিয়ে নিতো, এরপর তারা পালিয়ে যেত। ভারতের পাঞ্জাবে গত সপ্তাহে এমনই এক চক্রকে গ্রেফতার করছে পাঞ্জাব পুলিশ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হতে জানা যায়, বেশ কিছুদিন ধরেই হারিয়ানার ফতেহাবাদের বাসিন্দা দর্শনা দেবি তার ছেলে রবি কুমারের জন্য পাত্রী খুঁজছিলেন। এরপর, ওম প্রকাশ ও জসবিন্দর গিল নামক দুই ব্যক্তির মাধ্যমে সন্ধানও পান পছন্দসই পাত্রীর। ওই দীপ নামক পাত্রী ফিরোজপুরের বাসিন্দা।

দর্শনা দেবী আরও দাবি করেন, তাদের কনের সন্ধান দেওয়াতে ওম ও জসবিন্দরকে প্রথমেই ৩১ হাজার রুপি দিতে হয়েছিল। তারপর, গত মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) আনুষ্ঠানিকভাবে ফিরোজপুরে রবি ও দীপের বিয়ে হয়। সেখানে আইনি কাজ সারতে কনে এবং কনের পরিবারের পরিচয়পত্র চাওয়া হয়।

আরও পড়ুন# আফগানিস্তানে মসজিদে বোমা হামলা, তালেবান নেতা নি’হত

তখন বরপক্ষকে মিত আরোরা ও তারা আরোরা নামক দুইটি পরিচয়পত্র দেয় কনেপক্ষ। আর সেই পরিচয়পত্র দুইটি দেখে উপস্থিত পুরোহিত দাবি করেন, তিনি এর আগের দিন এই নাম ব্যবহার করে একজনকে বিয়ে দিয়েছেন।

পুরোহিতের কথা শুনে সন্দেহ হয় বরপক্ষের। পরে পুলিশকে খবর দেয় বরপক্ষ এবং প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ বুঝতে পারে, দর্শনা ও তার ছেলে রবির সাথে প্রতারণা করা হয়েছে। প্রতারকদের পুরোহির চিনতে না পারলে টাকা-গয়না নিয়ে পালিয়ে যেত তারা।

পুলিশ এই ঘটনায় ওম প্রকাশ, বীণা শর্মা, নেহা, জসবিন্দর সিং, দীপ, তারা আরোরা ও মিত আরোরা নামক সাতজনকে গ্রেফতার করেন এবং তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় আইনের একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়াও অভিযুক্ত প্রতারকচক্র এই রকমের কতগুলো প্রতারণার সাথে যুক্ত তা খতিয়ে দেখছেন পাঞ্জাব পুলিশ এবং তাদের তিনদিন পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে স্থানীয় আদালত।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Dear Viewer, Please Turn Off Your Ad Blocker To Continue Visiting Our Site & Enjoy Our Contents.