খবরবিনোদন জগৎ

ধর্মের ভিত্তিতে পৃথিবীতে কোনো দেশ হয় না: আসাদুজ্জামান নূর

নীলফামারীতে সামাজিক সম্প্রীতি বিষয়ক সমাবেশে সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের মানুষকে স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন একটি স্বাধীন বাংলাদেশের। তিনি বলেছিলেন, বাংলাদেশটা হবে একটা ফুলের বাগানের মতো। একটা ফুলের বাগানে বিভিন্ন রঙের ফুল থাকলে যেমন বেশি সুন্দর হয়, তেমনি একটি দেশে নানান ধর্মের মানুষ থাকলে দেশটি ফুলের বাগানের মতোই সুন্দর হয়।’

শনিবার দুপুরে জেলা প্রশাসন আয়োজিত শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতায় তি এ সকল কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘বাংনিলাদেশে তো নানান রঙের ফুলের একটি দেশ। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, পাহাড়ের মানুষ, সমতলের মানুষ, সাওতাল, গাড়ো, চাকমা, মারমা সব মিলেই তো বাংলাদেশ। এই যে বৈচিত্র্য, এই কারণেই তো বাংলাদেশটা সুন্দর। আর এই বৈচিত্র্য রক্ষা করা আমাদের প্রত্যেক নাগরিকের দায়িত্ব। যে কারণে মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষ কোনো ধর্মীয় শ্লোগান নয়, জয়বাংলা শ্লোগান তুলে নিয়েছিলাম। জয় বাংলা শব্দটা এসেছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের একটি কবিতা থেকে। বঙ্গবন্ধু সেখান থেকে জয় বাংলা শব্দটি নিয়েছেন। এই কবিতা লেখা হয়েছিল ভারত ভাগ হওয়ার অনেক আগে।’

আরও পড়ুন# গান নষ্ট করায় নেহা কক্করের প্রতি বিরক্ত ফাল্গুনী পাঠক!

নূর এরপর আরও বলেন, ‘ধর্মের ভিত্তিতে পূথিবীতে কোনো দেশ ভাগ হয় না। দেশ তৈরি হয় তার ইতিহাস ঐতিহ্য, সংস্কৃতি মিলে। যারা বলেন ধর্মের ভিত্তিতে দেশ হতে পারে তাদের কাছে আমার প্রশ্ন সৌদি আরব, আলজেরিয়া, মিসর, ইরান, ইরাক, আবুধাবি, কুয়েত ওমান পর্যন্ত যত মুসলিম দেশ আছে সব পাশাপাশি, এদের ভাষাও কিন্তু এক, আরবি। ওইখানে তো সকল দেশের মানুষ মুসলমান, সবাই আরবিতে কথা বলেন, তাহলে একটা দেশ হলো না কেন?’

তিনি উল্লেখ করে বলেন, ‘প্রত্যেকটা দেশের নিজস্ব ইতিহাস ঐতিহ্য আছে, সংস্কৃতি আছে। সেটা নিয়ে তারা গর্ব করেন, অহংকার করেন এবং নিজেদের আলাদা আলাদা ভাবে চিহ্নিত করেন। একজন ইরাকের মানুষ বলেন আমি ইরাকি, একজন মিসরের মানুষ বলেন আমি মিশরি, একজন ইরানের মানুষ বলেন আমি ইরানি, আরব দেশের মানুষ বলেন আমি আরবি, কুয়েতের মানুষ বলেন আমি কুয়েতি, কাতারের মানুষ বলেন আমি কাতারি। কারণ তাদের নিজ নিজ ভূখণ্ড নিয়ে, সংস্কৃতি নিয়ে গর্ব আছে, অহংকার আছে, যেভাবে আমাদের অহংকার আছে আমরা বাংলাদেশি। এই ইতিহাসের সত্যতা ভুলে গেলে চলবে না।

এই সমাবেশে আরও ছিলেন জেলার ছয় উপজেলার জনপ্রতিনিধি, শিক্ষার্থী, সুধি সমাজের প্রতিনি, ধর্মীয় নেতা, শিক্ষক ও রাজনৈতিক দলের নেতা।

Back to top button

Opps, You are using ads blocker!

প্রিয় পাঠক, আপনি অ্যাড ব্লকার ব্যবহার করছেন, যার ফলে আমরা রেভেনিউ হারাচ্ছি, দয়া করে অ্যাড ব্লকারটি বন্ধ করুন।