নারীরাই বেশি ভিটামিনের অভাবে ভোগেন!

বিভিন্ন গবেষণা থেকে জানা যায়, পুরুষের তুলনায় নারীরাই বেশি ভোগেন ভিটামিনের অভাবে তথা পুষ্টিহীনতায়। নারী ও পুরুষের দৈহিক গঠন ও বৈশিষ্ট্যেও রয়েছে তফাত, তাই তাদের ডায়েট চার্টও আলাদা। কিন্তু দেখা যায়, নারীরা পরিবারের অন্য সদস্যদের যত্ন নিতে গিয়ে, নিজের পর্যাপ্ত যত্ন নেন না বা নিতে পারেন না। তাদের সঠিক সময়ে না খাওয়া ও সঠিক পরিমাণে না খাওয়ার ফলেই মূলত নারীদের মধ্যে পুষ্টিহীনতার মাত্রা বেশি।

বেশিরভাগ নারীই খাবারের অনিয়ম করেন এবং সঠিক ডায়েট মেনে চলেন না। এইজন্য তাদের প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, আয়রন ও বিভিন্ন ভিটামিনের অভাব দেখা দেয়।

এইসব পুষ্টিহীনতা দূর করতে নারীরা তাদের খাবার তালিকায় যেসব খাবার রাখতে পারেন, তা নিচে আলোচনা করা হলো-

ডিম:

ডিম প্রোটিনের সেরা উৎস। এছাড়াও ডিমে রয়েছে ভিটামিন ডি। নারীদের শরীরে এই ভিটামিন ডি অভাব বেশি থাকে। তাই নারীরা খাদ্য তালিকায় ডিম রাখতে পারেন এবং ডিম পোচ, সিদ্ধ, অমলেট যেকোনো উপায় খেতে পারেন। তবে, ডিম সিদ্ধ খেলে সঠিক পুষ্টি পাওয়া যায়। কিন্তু, কারও কোলেস্টেরলের সমস্যা থাকলে সে কেবল ডিমের সাদা অংশ খাবেন।

দই:

দইকে একটি অন্যতম উপকারী খাদ্য বলা হয়। দইয়ে রয়েছে প্রচুর ভালো ব্যাক্টেরিয়া, যা হজমশক্তি বৃদ্ধি করে। যাদের ল্যাক্টোজ বা দুধে সমস্যা হয়, তারা বিকল্প হিসাবে দই খেতে পারেন। দই থেকে প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম ও পাওয়া যায়। তবে, মিষ্টি দইয়ের চেয়ে টক দই বেশি উপকারি।

বাদাম:

বিভিন্ন ধরনের বাদাম পাওয়া যায়। এসব বাদামে ‘গুড ফ্যাট’ ও প্রচুর প্রোটিন রয়েছে। স্ন্যাক্স হিসাবে অস্বাস্থ্যকর খাবার না খেয়ে আমন্ড, পেস্তা, ওয়ালনাট, কাজু বাদাম, চিনেবাদাম এসব খেতে পারেন৷ এছাড়াও চিয়ার বীজ, ফ্ল্যাক্সসিড, সিমের বীজ, কুমড়ার বীজ বা অন্য কোনো বীজ ও খেতে পারেন৷ এইসব বীজে প্রচুর ভিটামিন, প্রোটিন ও ক্যালসিয়াম থাকে, যা নারীদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

শাক-সবজি:

আমরা জানি, শাকি-সবজিতে প্রচুর ভিটামিন রয়েছে। তাই নারীদের খাবার তালিকাতে বিভিন্ন রকমের শাক, লেটুস, ব্রকলি এবং বিভিন্ন সবুজ শাক-সবজি রাখতে পারেন। এতে ভিটামিনের অভাব দূর হবে। শরীর সুস্থ থাকবে, বুড়িয়ে যাওয়া রোধ করবে।

সিজনাল ফল:

বিভিন্ন সিজনে বিভিন্ন ধরনের ফল পাওয়া যায়! যেমন- বর্তমানে আম ও কাঁঠাল প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া, পেঁপে, আপেল, আঙুর সহ অনেক ফল বারোমাসই পাওয়া যায়। এসব ফলে, ভিটামিন এ, ভিটামিন সি সহ অনেক ধরনের পুষ্টিগুণ থাকে। তাই নারীদের প্রতিদিনের খাবার তালিকায় অন্তত ৩০০ গ্রাম হলেও ফলমূল রাখা উচিত।

#আরও পড়ুন: বর্ষা মৌসুমে পায়ের বিশেষ যত্ন!

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Dear Viewer, Please Turn Off Your Ad Blocker To Continue Visiting Our Site & Enjoy Our Contents.