অদ্ভুতুড়েজাতীয়সন্দেশ

ভোলায় কালো রঙের ডিম পাড়লো হাঁস!

ভোলায় একটি হাঁসের কালো ডিম পাড়ার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে হাঁসের খোঁয়াড়ে যান গৃহকর্ত্রী তাসলিমা বেগম। কয়েকটি ডিমের মধ্যে চোখে পড়ে ডিম আকৃতির কালো বস্তু। প্রথমে ভয় পেয়ে গেলেও কাছে গিয়ে দেখেন কালো বস্তুটি সত্যিই একটি ডিম। পরে খবর দেওয়া হয় উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালেও খামারে আরও একটি কালো ডিম দেখতে পান তাসলিমা। ডিমটি একই হাঁসের বলে দাবি তার। তাসলিমার দাবি, হাঁসটির বয়স প্রায় আট মাস। সাদা রঙের এই হাঁসটির প্রথম ডিম এটাই।

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় জিন্নাগড় ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল মতিনের বাড়িতে পাওয়া যায় এই কালো ডিম। তাসলিমা আব্দুল মতিনের স্ত্রী। হাঁসের কালো ডিম নিয়ে এলাকায় চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে। ডিম দেখতে বাড়িতে ভিড় করছে এলাকাবাসী।

আরও পড়ুন# পরপুরুষ দেখবে, তাই ঘরে আটকে চিকিৎসা! বাঁচানো যায়নি ফাহমিদাকে!

আব্দুল মতিন দাবি করেন, তার স্ত্রী ১১টি দেশি হাঁস লালন পালন করেন। এর মধ্যে আট মাস বয়সী একটি হাঁস এই প্রথম ডিম পাড়ে। সকালে বাড়ির খোঁয়াড় থেকে হাঁস ছাড়তে গেলে কালো রঙের একটি ডিম দেখতে পান। একই অবস্থা বৃহস্পতিবারও ঘটে। বিষয়টি নিয়ে তারাও বেশ চিন্তিত।

চরফ্যাশন উপজেলা উপসহকারী প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘বুধবার হাঁসের কালো ডিম দেওয়ার বিষয়টি জানার পর আমরা ওই বাড়িতে গিয়ে এর সত্যতা পেয়েছি। আজও (বৃহস্পতিবার) আরও একটি কালো ডিম দিয়েছে হাঁসটি। তবে সেটি প্রথম দিনের তুলনায় কিছুটা কম কালো। এ ছাড়া ডিমগুলো কিছু দিয়ে আঁচড় দিলে ভেতর থেকে সাধারণ ডিমের কালার বেরিয়ে আসে। তার পরও আমরা বিষয়টি পর্যবেক্ষণে রেখেছি। আরও এক সপ্তাহ দেখার পর এ ডিমগুলো ঢাকায় প্রাণিসম্পদের পরীক্ষাগারে পাঠানো হবে। হাঁসটি বিশেষ কোনো প্রজাতির না-কি রোগাক্রান্ত সেটিও বেরিয়ে আসবে।’

Back to top button

Opps, You are using ads blocker!

প্রিয় পাঠক, আপনি অ্যাড ব্লকার ব্যবহার করছেন, যার ফলে আমরা রেভেনিউ হারাচ্ছি, দয়া করে অ্যাড ব্লকারটি বন্ধ করুন।