ভয়ঙ্কর বন্যায় যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু ১৫ জনের, জরুরি অবস্থা জারি!

টানা বর্ষণের ফলে যুক্তরাষ্ট্রের কেনটাকি অঙ্গরাজ্যে সৃষ্টি হয় ভয়াবহ বন্যা এতে মৃত্যুর খবর পাওয়া যায় কমপক্ষে ১৬ জনের। তবে রাজ্যের গভর্নর অ্যান্ডি বেশার জানান, এ সংখ্যা দ্বিগুণেরও বেশি হতে পারে। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জরুরি অবস্থা জারি করেছেন কেনটাকিতে।

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া প্রবল বন্যায় স্থানীয়দের ঘরবাড়ি ভেসে গেছে । রাজ্যের গভর্নর অ্যান্ডি বেশার জানিয়েছেন, মৃত্যু এবং ক্ষয়ক্ষতির সংখ্যা বাড়তে পারে আরো। বন্যায় আটকে পড়াদের উদ্ধারে নৌকার পাশাপাশি হেলিকপ্টার ব্যবহার করে আটকে পড়াদের উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল গার্ড এবং পুলিশ। হেলিকপ্টারে করে বন্যার্তদের উদ্ধারে কাজ করছে অর্ধশতাধিক টিম। পাশাপাশি নৌকায় করেও উদ্ধার তৎপরতা চালানো হচ্ছে।

এ পর্যন্ত উদ্ধার করা হয়েছে ৩০০ জনকে। স্থানীয়দের প্রকাশ করা একাধিক ভিডিওর মাধ্যমে এমন দেখা গেছে যে—বন্যার তীব্রতা এত বেশি যে, কোথাও কোথাও বন্যার পানি ঘরের ছাদ পর্যন্ত পৌঁছে গেছে। রাস্তাগুলোতে এত বেশি পানি জমেছে দেখে মনে হচ্ছে নদী।

বেসিয়ার জানান, বন্যাজনিত ঘটনায় শুক্রবার পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ১৬ জনে দাঁড়িয়েছে, এদের মাঝে অন্তত ছয়টি শিশু রয়েছে। বন্যার পানি কমার পর অনুসন্ধানকারী দল আরও মৃতদেহ খুঁজে পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে আর তাতে মৃতের সংখ্যা প্রায় নিশ্চিতভাবে আরও বাড়বে বলে জানিয়েছেন তিনি। তিনি আরো জানান এখনও অনেক মানুষ নিখোঁজ আছে।

রাজ্যটির ২৩ হাজার বাসিন্দা বিদ্যুৎহীন অবস্থায় আছে। তাদের পানির লাইনও ডুবে গেছে। এ অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়া অফিস জানায় যে, রোববার থেকে আবারও টানা বৃষ্টি ও ঝড়ের সম্ভাবনা রয়েছে।

কেন্টাকির জিওলজিক্যাল সার্ভের পরিচালক অধ্যাপক উইলিয়াম হেইনবার্গ বলেন, “২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিভিন্ন অঞ্চলে ১৩ থেকে ২৫ সেন্টিমিটার বৃষ্টি হওয়ায় বন্যা দেখা দিয়েছে। মানুষের কৃতকর্মে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে ‘মহাকাব্যিক এসব প্লাবনের’ ঘটনা ঘটছে।”

আরও পড়ুন: তাইওয়ান সফর নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে চীনের হুঁশিয়ারি!

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Dear Viewer, Please Turn Off Your Ad Blocker To Continue Visiting Our Site & Enjoy Our Contents.