টিপস এন্ড ট্রিকসফিচারলাইফস্টাইলস্বাস্থ্য ও লাইফস্টাইল

সহবাসের সময় যে কাজগুলো করবেন না!

বলা হয়ে থাকে, দম্পতির সম্পর্ক মজবুত করে তাদের একান্তে সময় কাটানো বা সহবাস। তবে কোনও কোনও সময় এমন হয় যে দম্পতি তাদের ঘনিষ্ঠ সময় এমন কিছু ভুল করে বসেন যে, সম্পর্ক মজবুত হওয়া দূরে থাক উল্টো খারাপের দিকে মোড় নেয়। তাই সহবাসে বা ঘনিষ্ঠ এমন কিছু করা উচিত নয়, যা সম্পর্কে ফাটল ধরাবে। তাই চলুন জেনে নিই— সহবাসের সময় যে কাজগুলো করবেন না তা সম্পর্কে!

১| শারিরীক সম্পর্ক নিয়ে প্রত্যেকটা মানুষের আলাদা আলাদা ফ্যান্টাসি থাকে, এটা স্বাভাবিক। তাই এই নিয়ে লজ্জার কিছু নেই। যদি আপনার এমন কোনো ফ্যান্টাসি থাকে তবে তা আপনার সঙ্গীকে জানান এবং তার কোনো ফ্যান্টাসি থাকলেও তা শুনুন৷ আর চেষ্টা করুন একে অপরকে ফ্যান্টাসি অনুসারে ঘনিষ্ঠ হতে।

২| ঘনিষ্ঠ সময়ে অতীতের কথা তুলবেন না। হয়তো অতীতে আপনাদের দুইজনের ঝগড়া হয়েছে অথবা ঘনিষ্ঠ সময়ে আপনি তার ওপর খুশি না। হতেই পারে অতীতের খারাপ কিছু। কিন্তু সেই কথা তুলে বর্তমান সমিয়ের ঘনিষ্ঠ সময় নষ্ট করার মানে নেই।

৩| ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে দুইজনেরই আগ্রহ থাকা চাই। তাই সঙ্গীর ইচ্ছা জানুন। হতে পারে আপনি তখন রোমান্টিক মুডে আছে কিন্তু আপনার সঙ্গী একদমই সেই মুডে নেই। আপনার ইচ্ছাতে যে তাকে সায় দিতে হবে এমন না। তাই জেনে নিন তার আসলে ইচ্ছা আছে কিনা।

আরও পড়ুন# জন্মের সময় হাসপাতালে অদলবদল, বড়ো হয়ে তারাই হলো জীবনসঙ্গী!

৪| নেতিবাচক কথা বলবেন না। অনেকেরই এমন স্বভাব রয়েছে যে, যেকোনো স্থানে নেতিবাচক কথা বলা। আপনি যদি আপনার সঙ্গীর কোনো কথা বা বিষয় পছন্দ না করেন, তবে আপনাকে সঠিক সময়ে আপনার কথা বলতে হবে। ঘনিষ্ঠ মুহূর্তগুলি এটি বলার জন্য ঠিক সময় নয়।

৫| তার প্রতি মিথ্যে প্রেম দেখাবেন না। যদি আপনার মন ঠিক না থাকে, তবে সেটা আগেই বলুন সঙ্গীকে। তার সাথে সায় মিলিয়ে নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ঘনিষ্ঠ হলে তা সঙ্গী ঠিকই বুঝবে। তাই সঙ্গীকে মিথ্যে প্রেম না দেখিয়ে সরাসরি বলুন আপনার মনের অবস্থা।

৬| জীবনে কাজ থাকবে, কাজের চাপ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু ঘনিষ্ঠ সময়ে নিজেদের মাঝখানে কাজের চাপ আনবেন না৷ যদি আপনি অফিস বা পারিবারিক বিষয়গুলিকে মাঝখানে নিয়ে আসেন, তবে অবশ্যই আপনার উভয়ের মেজাজ খারাপ হবে। তাই আপনাদের জীবনের এই জটিল বিষটগুলিকে কিছু সময়ের জন্য দূরে রাখুন।

৭| ঘনিষ্ঠ হওয়ার প্রথমেই শারীরিক মি’ল’ন চাইবেন না। মনে রাখবেন মন জয় করতে পারলে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক এমনিতেই মধুর হবে। তাই পুরোদস্তুর শারীরিক মি’ল’নের আগে, সঙ্গীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠুন।

৮| আপনার সঙ্গীর কোনো কিছু যদি কখনো আপনার মনে খারাপ লেগে থাকে। তবে সেটি শারীরিক ঘনিষ্ঠতার সময়ে বলবেন না। এতে আপনাদের দুজনেরই মেজাজ খারাপ হয়ে যাবে।

যাই হোক, আজকের মতো এখানেই। আশাকরি এই আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে। যদি আপনার এই আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে তবে অবশ্যই অন্যদের সাথে শেয়ার করবেন এবং এই ধরনের আরও আর্টিকেল পেতে অনুলিপির সাথেই থাকুন।

Back to top button

Opps, You are using ads blocker!

প্রিয় পাঠক, আপনি অ্যাড ব্লকার ব্যবহার করছেন, যার ফলে আমরা রেভেনিউ হারাচ্ছি, দয়া করে অ্যাড ব্লকারটি বন্ধ করুন।