লাইফস্টাইলস্বাস্থ্য ও লাইফস্টাইল

আপনার হাতে টাকা থাকবে না যে ৪টি বদ অভ্যাসের কারণে!

অনেকেই প্রতিমাসে পর্যাপ্ত আয় করেও তাদের হাতে টাকা থাকে না! তাদের বাধ্য হয়ে মাস পার হবার আগেই ধার চাইতে হয়। এমন পরিস্থিতির জন্য দায়ী কিছু বদ অভ্যাস। আজকে আমরা এই রকম ৪ টি বদ অভ্যাস সম্পর্কে জানব। যার জন্য অনেক টাকা আয় করেও হাতে টাকা থাকে না। তো চলুন জেনে নিই—

১| অহেতুক কেনাকাটা—

প্রয়োজনীয় ও ব্যবহার্য জিনিস কেনাকাটা করা অবশ্যই উচিত। কিন্তু, অনেকেই আছেন যাদের অনেক জিনিসের প্রয়োজন নেই। তবুও মাসে ৬-৭ বার কেনাকাটা করে। আর ওসব জিনিস ব্যবহারও করে না, বরং ফেলে রাখে। এই অভ্যাস আপনার থাকলে এখুনি পরিবর্তন করুন। কেন না, অপ্রয়োজনীয় জিনিস কেনা অপচয় বইকি আর কিছু নয়। এইজন্য চাইলে আপনি প্রয়োজনীয় জিনিসের তালিকা করে নিতে পারেন এবং সেগুলোই কিনতে পারেন। এতে অপ্রয়োজনীয় জিনিসের প্রতি নজর কম যাবে।

২| প্রতিদিন পার্টি করা বা রেস্টুরেন্টে খাওয়া—

মানসিক শান্তির জন্য মাঝে মধ্যে বন্ধু বা আত্মীয়দের সাথে পার্টি করা, একত্রে রেস্টুরেন্টে খাওয়া উচিত। তবে এর মাত্রা যদি নেশায় পরিণত হয় তবে তা খুবই খারাপ। কেন না, এই শখের জন্য প্রতিদিন নূন্যতম ১০০০ টাকা গেলেও মাস শেষ ৩০০০০ টাকা। যা একটি পরিবার চলার জন্য যথেষ্ট। তাই আপনার এমন অভ্যাস থাকলে ত্যাগ করুন।

আরও পড়ুন# ৩১ হাজার বছর আগেও অপারেশন হয়েছিল?

৩| উপার্জনের চেয়ে বেশি ব্যয়—

অনেকেই আছেন যারা উপার্জনের চেয়ে অধিক ব্যয় করেন। এরপর অন্যের কাছে হাত পাতেম। যাদের এমন অভ্যাস আছে তারা কখনো জীবনে উন্নতি করতে পারে না। বেশিরভাগ সময়ই আর্থিক সীমাবদ্ধতার সম্মুখীন হয়। জীবনে সুখ চাইলে, নিজের আয়ের অনুসারে ব্যয় করতে অভ্যাস করুন।

৪| নিরর্থক ভান করা—

অনেকেই আছেন যারা চেহারায় অনেক বিশ্বাসী। তারা শো অফ করতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। তারা শো অফ করতে গিয়ে অনেক নামী দামি জিনিস কিনে ফেলে। যা তাদের প্রয়োজন নেই। আবার তারা দরদাম করতেও লজ্জাবোধ করে। ফলে, সব জায়গায় অতিরিক্ত টাকা খরচ করে। আপনার যদি এমন অভ্যাস থাকে তা এখুনি পরিবর্তন করুন। কাউকে দেখিয়ে নিজেকে বড়ো প্রমাণের কিছু নেই। আপনার অসহায় সময়টাতে এসব জিনিস কাজে আসবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button