এবার গাড়ি চলবে সূর্যের আলোতে, বেঁচে যাবে জ্বালানি খরচ!

সারা পৃথিবীতে দিন দিন বেড়েই চলছে জ্বালানি তেলের দাম, বাড়ছে পরিবেশ দূষণের হার। এর প্রেক্ষিতে বর্তমানে বেশ কিছু গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নতুন ভাবনা ভাবছে— গাড়িকে কীভাবে পরিবেশবান্ধব তৈরি করা যায়, সেই সাথে গাড়ি চলতে প্রয়োজন হবে না জ্বালানি তেলের। ঠিক এই স্বপ্নটাই এবার সত্যি করতে যাচ্ছেন ভারতীয় এক নাগরিক।

দ্য ইন্ডিয়া সংবাদমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে ওঠে এসেছে বিলাল আহমেদ নামক এক ব্যক্তির কথা। যিনিই মূলত এই বিশেষ গাড়ির আবিষ্কারক। এই বিলাল কোনো বিজ্ঞানী বা অটোমেবোইল গবেষক না, তিনি পেশায় একজন গণিত শিক্ষক। তার বাড়ি কাশ্মীরের রাজধানী শ্রীনগরের সনত নগরে।

বিলাল আহমেদ ২০০৯ সালে প্রথম এই বিশেষ পরিবেশবান্ধব গাড়ি তৈরি করার পরিকল্পনা করেন। আর গাড়িটিকে বাস্তবে পরিণত করতে তার সময় লেগেছে প্রায় ১১ বছর।

#আরও পড়ুন: প্রতি সেকেন্ডে পৃথিবীর সমান ভর গিলা ব্ল্যাকহোল এর গল্প!

তবে দেখা যায়, কাশ্মীরের আকাশ প্রায়শ মেঘাচ্ছন্ন থাকে, এই মৃদু সূর্যের আলোতে গাড়ি চালানো খুবই কঠিন। তবে তিনি এই বিষয়টিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন।

তিনি গাড়িতে মনোক্রিস্টালাইম সোলার প্যানেল ব্যবহার করেন। যা মূলত গাড়িটিকে সম্পূর্ণ বিদ্যুতে চলার উপযোগী করে। আর এই গাড়িটি বিলাসবহুল গাড়ির আঙ্গিকেই পাওয়া যাবে এবং এতে সব ধরনের ফিচারই বিদ্যমান থাকবে।

এছাড়াও এই গাড়ির ছাদ, সাইড গ্লাস, পেছনের কাঁচ ও বনেটেও সোলার প্যানেল লাগানো হয়েছে। তবে, এর জন্য গাড়ির সৌন্দর্য নষ্ট হয়নি, এই বিষয়েও বিশেষ নজর দিয়েছেন তিনি।

বিলালের স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত হবার পর তিনি মনে করেন যে, ভারতীয় সরকার তাকে পর্যাপ্ত সহায়তা প্রদান করলে তিনি নিজের দেশের চাহিদা মিটিয়ে এই গাড়ি বিদেশেও রপ্তানি করবেন।

বলা যায়, বিলালের স্বপ্ন যদি বাস্তবায়িত হয়, তবে বিলাল হবেন কাশ্মীরের ইলন মাস্ক।

#আরও পড়ুন: মশার কাছে আপনাকে সুস্বাদু করে তোলে যে ভাইরাসগুলো!

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Dear Viewer, Please Turn Off Your Ad Blocker To Continue Visiting Our Site & Enjoy Our Contents.