কর্মক্ষেত্রে মতবিরোধ কীভাবে কমাবেন?

 অনুলিপির পোস্ট সবার আগে পড়তে গুগল নিউজে ফলো করুন 👈

ভিন্ন ভিন্ন মানুষের মতও ভিন্ন। তাই একসাথে যখন একাধিক মানুষ একত্রে বসবাস করেন তখন তাদের মধ্যে দেখে মেলে মতবিরোধের। কেবলমাত্র পরিবারের সদস্য, প্রতিবেশী, আত্মীয় কিংবা বন্ধুবান্ধবই নয়, মতবিরোধ দেখা যায় কর্মক্ষেত্রেও। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় দেখা যায়, প্রায় ৮৫ শতাংশ মানুষই কোনো না কোনভাবে কর্মক্ষেত্রে মতবিরোধের মুখোমুখি হোন। তবে, অনেক সময় চিরস্থায়ী ভাবে শেষ করা যায় না মতবিরোধ। ফলে, কলিগের সাথে সম্পর্কের ফাটল ধরে। আজকের আর্টিকেলে আমরা জানবো, কর্মক্ষেত্রে মতবিরোধ কীভাবে কমাবেন তার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত।

কর্মক্ষেত্রে মতবিরোধ কীভাবে কমাবেন?

মতবিরোধের মূল কারণ শনাক্ত করুন—

মতবিরোধ কমানোর প্রথম উপায় হলো এর মূল কারণ খুঁজে বের করা। ঠিক কী কারণে মতবিরোধ হয়েছে। তা খুঁজে বের করুন। যদি সমস্যার মূলে প্রবেশ করতে পারেন, তবে সমাধানও অনেকাংশে হয়ে যায়।

সহনশীল মনোভাব গড়ুন—

মতবিরোধ এড়িয়ে চলার অন্যতম উপায় হলো সহনশীল হওয়া। আমাদের চারপাশে কিছু মানুষ থাকে, যারা আপনি না চাইকেও গায়ে পড়ে ঝগড়া করতে চাইবে। এদের সবসময় এড়িয়ে চলতে চেষ্টা করুন। আর আপনি এমন অনেক কিছু এড়িয়ে গেলে তখন মতবিরোধ হবার সম্ভাবনাও কমে।

আরও পড়ুন# এমআরএনএ ভ্যাক্সিন কী এবং এটি কীভাবে কাজ করে?

আলোচনার মাধ্যমে মতবিরোধ সমাধান করুন—

আমরা অনেকেই আছি যে, মতবিরোধ নিয়ে খোলাখুলি আলোচনা করতে চাই না। এমন না করে মতবিরোধ নিয়ে উন্মুক্ত আলোচনা করুন এবং আলোচনার মাধ্যমে সমাধান ঠিকই বেরিয়ে আসবে। নিজের ভুল হলে তা যেমন বুঝতে পারবেন, তেমনি অপরপক্ষের ভুল থাকলে তাকেও যৌক্তিকভাবে বোঝাতে পারবেন। এছাড়াও এমনভাবে আলোচনা করুন যাতে অপরপক্ষ বুঝে যে, আপনি আসলে নিষ্পত্তি চান। এতে করে মতবিরোধ কমাতে অপরপক্ষও সহযোগিতা করবেন।

নিরপেক্ষ তৃতীয় পক্ষের সহায়তা গ্রহণ করুন—

যদি মতবিরোধ আপনি ব্যক্তি পর্যায়ে চেষ্টা করেও নিষ্পত্তি ঘটাতে না পারেন। তবে, তৃতীয় পক্ষের সহায়তা গ্রহণ করুন। এক্ষেত্রে অবশ্যই তৃতীয় পক্ষকে হতে হবে নিরপেক্ষ। এছাড়াও এমন ব্যক্তিকেই তৃতীয় পক্ষ হিসাবে নির্বাচন করুন, যার কথা দুই পক্ষই মানবেন। নতুবা সমস্যা সমাধানের পরিবর্তে আরও বৃদ্ধি পাবে।

যৌক্তিক মতামতকে গুরুত্ব দিন—

আমরা সবচেয়ে যে ভুলটা কর্মক্ষেত্রে করি, তা হলো অন্যের মতামত শুনতে অপছন্দ করা। এমন করা যাবে মা। কর্মক্ষেত্রে কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে চাইলে যেটা যৌক্তিক মতামত, তা গ্রহণ করুন। এক্ষেত্রে আপনার বয়সে ছোটো কিংবা আপনার অপছন্দের ব্যক্তি হলেও তার মতামত যৌক্তিক হলে মেনে নিন। এতে মতবিরোধ কমবে।

অন্যের আবেগকেও বুঝতে চেষ্টা করুন—

অনেক সময়ই আমরা এমন পরিস্থিতিতে পড়ি যে, আমরা নিজের অজান্তেই রাগের মাথায় অন্যকে কষ্ট দিয়ে ফেলি। এইজন্য রাগের মাথায় কিছু না বলে, নিজেকে শান্ত করুন। এরপর অপরপক্ষকে সহজভাবে বুঝিয়ে বলুন। আর যদিও তাকে কষ্ট দিয়ে ফেলেন, তবে নিজের ভুল বুঝতে পারার সঙ্গে সঙ্গে তার কাছে ক্ষমা চান। তাকে বুঝান আপনি ইচ্ছাকৃত এমন ভুল করেননি।

আরও পড়ুন# যেসব খাবার হ্যাপি হরমোন বাড়ায়!

পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আগেই নিয়ন্ত্রণ করুন—

দেখা যায়, অনেক সময় মতবিরোধ এমন অসহ্য পর্যায়ে চলে যায় যে, তাভার নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। তাই চেষ্টা করুন, মতবিরোধ নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।

যাই হোক, আজকের মতো এখানেই। এই ছিল— কর্মক্ষেত্রে মতবিরোধ কীভাবে কমাবেন তার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত! আজকের আর্টিকেলটি আপনার ভালো লাগলে অবশ্যই অন্যদের সাথে শেয়ার করবেন এবং এই ধরনের আরও আর্টিকেল পেতে অনুলিপির সাথেই থাকুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Dear Viewer, Please Turn Off Your Ad Blocker To Continue Visiting Our Site & Enjoy Our Contents.